জনগণ নন্দিত একজন সাহসী নেতার কণ্ঠস্বর সহস্র বুলেটের চেয়ে শক্তিশালী

জনগণ নন্দিত একজন সাহসী নেতার কণ্ঠস্বর সহস্র বুলেটের চেয়ে শক্তিশালী ভাবসম্প্রসারণ

মূলভাব: পৃথিবীব্যাপী সৃষ্টিশীল সংগ্রামী উদ্যোগগুলাের সফলতার পেছনে যােগ্য নেতৃত্বের অবদান অনস্বীকার্য। তাঁরা নবজাগরণের মন্ত্রদ্রষ্টা। এ নবজাগরণ তারা সাধন করেছেন অস্ত্রশক্তির জোরে নয়, বরং তাদের বিকশিত বােধের মাধ্যমে তাদের দৃপ্তকণ্ঠের সাহসী উচ্চারণ পথ দেখায় অগণিত জনগণকে, যা সহস্র বুলেটের মাধ্যমেও সম্ভব নয়।

ভাবসম্প্রসারণ: অস্ত্রশক্তির দাপটে মুহূর্তে নিঃস্তন্ধ হতে পারে হাজার হাজার মানুষের প্রাণস্পন্দন । কিন্তু এতে সুদূরপ্রসারী সফলতা আসে না,বরং অস্ত্রের ঝংকারে রক্তারক্তিই বেড়ে যায়। তবে একজন নেতা যখন নিজের প্রাণের ভয় তুচ্ছজ্ঞান করে তেজোদীপ্ত করে। দৃপ্ত উচ্চারণে মানুষকে পরিবর্তনের আহ্বান জানান তখন লাখাে মানুষের মনে আশার সঞ্চার হয়। তার নেতৃত্বের প্রভাবে প্রভাবিত হয় মানুষের অন্তর । আর মনের পরিবর্তনই মানুষকে তার কৃতকর্মে দায়িত্বশীল করে তােলে। এ পৃথিবীর নবজাগরণের সংগ্রাম কণ্টকাকীর্ণ ও সর্পিল পথেই সাধিত হয়েছে। এসব সংগ্রামের অগ্রভাগে ছিলেন সাহসী ও অকুতােভয় সংগ্রামী নেতারা। নেতার বলিষ্ঠ কণ্ঠ প্রাণশক্তির সঞ্চার করে আপামর জনসাধারণের মনে। ফলে তিনি হয়ে ওঠেন আপামর জনগােষ্ঠীর পছন্দের ও ভালােবাসার আশ্রয়স্থল। যার আহ্বানে সবাই প্রাণ দিতে অকপটে প্রস্তুত হয়। ইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, আমাদের জাতীয় সংগ্রামগুলাে কীভাবে যােগ্য নেতৃত্বের প্রভাবে সফলতা পেয়েছে। আমাদের ইতিহাসের অবিস্মরণীয় নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর সাহসী দৃপ্তকণ্ঠস্বর একাত্তরের মুক্তিসংগ্রামে অনুপ্রাণিত করেছিল লাখাে বাঙালিকে। অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে সেদিন কোনাে বাঙালিকে মুক্তিসংগ্রামে অংশগ্রহণ করার জন্যে উদ্বুদ্ধ করা হয়নি। বরং বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শুনেই সেদিন সবাই যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছিল, ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতা। অস্ত্রের ভয় যদি নেতার সাহসী মনের চেয়ে বেশি প্রভাব ফেলত তবে হিটলার মানবসমাজে সম্মানের আসনে আসীন হতেন। কিন্তু বাস্তবে তা হননি। বরং মর্যাদা পেয়েছেন মহাত্মা
গান্ধী, শেখ মুজিবুর রহমান প্রমুখ। কেননা এঁদের হাতিয়ার ছিল ব্যক্তিত্বময় চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, সৎসাহস আর তেজোদীপ্ত কণ্ঠস্বর । এ কণ্ঠস্বর জনগণের প্রেরণার উৎস।

অস্ত্রশক্তি রক্তবন্যার মধ্য দিয়ে মানবমনে ভয়ের সজ্ঞার করতে পারে, কিন্তু দিতে পারে না স্বতঃস্ফূর্ত অনুপ্রেরণা। তবে দেশব্রতী, ত্যাগী সাহসী কণ্ঠের আহ্বানে তা সম্ভব। তাই জাতীয় স্বার্থরক্ষায় সাহসী ও যােগ্য নেতার বিকল্প নেই।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *