জ্ঞানহীন মানুষ পশুর সমান

জ্ঞানহীন মানুষ পশুর সমান ভাবসম্প্রসারণ

মূলভাব: শিক্ষা-দীক্ষাহীন মানুষ হয় নির্বোধ, তার কোনাে হিতাহিত জ্ঞান থাকে না। জ্ঞান, বুদ্ধি, বিবেচনা ও বােধশক্তিহীন মানুষ পশুর সমান।

ভাবসম্প্রসারণ: মানুষ সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ জীব। জ্ঞান, বুদ্ধি ও বিবেকের জন্যেই মানুষ এ শ্রেষ্ঠত্বের সম্মান লাভ করেছে। পশুর সাথে মানুষের পার্থক্য হলাে মানুষ যেকোনাে বিষয় জ্ঞান দিয়ে পর্যালােচনা করে এবং বিবেক দিয়ে ভালাে-মন্দ বিচার করতে পারে। তবে মানুষ জন্ম থেকেই পরিপূর্ণ জ্ঞানের অধিকারী হয় না। মানুষের মধ্যে জ্ঞান সুপ্ত অবস্থায় থাকে। ধীরে ধীরে যথাযথ অনুশীলনের মাধ্যমে জ্ঞানের বিকাশ ঘটে। অতএব যথার্থ ও পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হলে প্রতিটি মানুষের জ্ঞানচর্চা করা অপরিহার্য। যে মানুষের সুপ্ত জ্ঞান বিকশিত হয় না অর্থাৎ জ্ঞানহীন অবস্থায় থাকে তার আর পশুর মধ্যে কোন পার্থক্য থাকে না। পশুর জ্ঞান নেই বলে সে নির্বোধ, জ্ঞানহীন ও বিবেকবুদ্ধিহীন। কারণ পশু নিজেকে ছাড়া অন্য কিছু বােঝে না। তার কাছে আপন-পর ভালাে-মন্দ ও ন্যায়-অন্যায়ের কোনাে পার্থক্য নেই। প্রয়ােজনে স্বগােত্রের যে কাউকে হত্যা করে আহার করে। জ্ঞানহীন মানুষের আচরণও তেমনি পশুর মতাে। তার মধ্যে জ্ঞানের আলাে প্রবেশ করেনি বলে সে হয় বিবেকবর্জিত। সে অজ্ঞতার অন্ধকারে ডুবে থাকে। ফলে হিংস্র প্রাণীর মতাে যেকোনাে অন্যায় কাজ করতে সে দ্বিধা করে না। এমনকি পশুর মতাে নিজ স্বার্থসিদ্ধির জন্যে আপনজনকেও হত্যা করতে দ্বিধা করে না। এভাবে জ্ঞানহীন মানুষরা মনুষ্যত্বের অবমাননা করে মানবজন্মের উদ্দেশ্যকে ব্যর্থ করে দিচ্ছে। তাই জ্ঞান অর্জনের কোনাে বিকল্প নেই। কারণ জ্ঞানই মানুষকে সৎ, সুন্দর ও আদর্শবান হয়ে বেড়ে উঠতে সাহায্য করে। মানুষের মনােজগৎকে পবিত্র করে পরিপূর্ণ মানুষরূপে গড়ে উঠতে সাহায্য করে জ্ঞান।

সুতরাং দেশ ও জাতির উন্নতিকল্পে সকলের অন্তরকে জ্ঞানের আলােয় আলােকিত করা উচিত। জ্ঞান মানুষকে পৃথিবীতে আপন অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে সাহায্য করে। জ্ঞানই মানুষকে মহৎ করে। এখানেই মানুষ ও পশুর পার্থক্য।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *