যে জাতি জীবন হারা অচল অসার পদে পদে বাধে তারে জীর্ণ লােকাচার

যে জাতি জীবন হারা অচল অসার পদে পদে বাধে তারে জীর্ণ লােকাচার ভাবসম্প্রসারণ

ভাবসম্প্রসারণ: গতিশীলতাই প্রকৃতির স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য। প্রত্যেক জাতিরই একটি নিজস্ব স্বাভাবিক গতিধারা আছে। কোনাে কারণে সে গতিধারা থেকে বিচ্যুত হলে জাতীয় জীবনে স্থবিরতা নেমে আসে ।

গতিই জীবন । আমাদের চারপাশে দৃশ্যমান সকল জীবন্ত বস্তুই নিজস্ব গতিতে ভবিষ্যতের পানে ধাবমান। এ কথা মানুষের ব্যক্তিজীবন এবং সামষ্টিক জীবনের ক্ষেত্রেও প্রযােজ্য। অর্থাৎ জীবনের চাকাকে সপ্রাণ রেখে সামনে এগিয়ে নিতে চাইলে গতির সাধনা আবশ্যক। কোনাে কারণে সে জীবনে স্থবিরতা এলে পতন অনিবার্য, উন্নতির আশা অসম্ভব। আমাদের পারিপার্শ্বিক বাস্তবতা সর্বদা গতির জয়গান গেয়ে চলেছে। প্রবহমান নদী গতিময়তার অন্যতম শ্রেষ্ঠ উদাহরণ। যে নদীতে স্বাভাবিক সােতপ্রবাহ থাকে সে নদীতে কোনাে জঞ্জাল জমতে পারে না। পক্ষান্তরে সােতহীন মরা নদীতে নানাবিধ আবর্জনা জমে, সে নদীর স্বাভাবিক গতি হয় রুদ্ধ । তদূপ, ব্যক্তিগত কিংবা জাতীয় জীবন কোনাে কারণে স্থবির হয়ে পড়লে সেখানে উন্নতির আশা করা নিছক দুরাশা মাত্র । যদি কোনাে জাতি উদ্যম ও মনােবল হারিয়ে গতিহীন হয়ে পড়ে তবে সে জাতি পরিবর্তনশীল বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে ব্যর্থ হয়। নিরন্তর পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে না পারলে, জীর্ণ পুরাতনকে আঁকড়ে ধরে বসে থাকলে ভবিষ্যতের পথে হাঁটা অসম্ভব হয়। স্রোতহীন নদীর মতােই সে জাতির পৃথচলা নানাভাবে বাধাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। কারণ।
চলমানতা হারিয়ে ফেলার অর্থই হলাে সম্ভাবনাময় প্রগতির পথকে হারিয়ে ফেলা। বিশ্বের উন্নত জাতিসমূহের দিকে দৃষ্টিপাত করলে গতিময়তার মূল্য সম্যকরূপে উপলব্ধি করা যায়। সময়ের আহ্বানে সাড়া দিয়ে, সর্বদা গতিশীল ছিল বলেই আজ তারা উন্নতির চরম শিখরে পৌছাতে পেরেছে। অন্যদিকে যারা গতিশীলতার মর্ম অনুধাবন করতে পারেনি সেসব জাতি কালক্রমে স্থবির হয়ে অগ্রগতির রথ থেকে ছিটকে পড়েছে। তাছাড়া লক্ষণীয়, নানাবিধ কুসংস্কার ও ভিত্তিহীন লােকাচারের বেড়াজাল গতিহীন জাতিকে আষ্টেপৃষ্টে বেঁধে ভবিষ্যৎ মুক্তি ও উন্নতির পথকেও রুদ্ধ করে দেয়। তাই আমাদের জাতীয় জীবনে। অপ্রয়ােজনীয় বিষয়গুলােকে ছেটে ফেলে নতুনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে পরিবর্তনের পথে অগ্রসর হতে হবে।

জাতীয় জীবনে উন্নতি ও অগ্রগতির জন্য গতিশীলতা একান্ত আবশ্যক। একমাত্র গতিশীল জাতির পক্ষেই ধারাবাহিক অগ্রগতির মাধ্যমে উন্নতির সৰ্বোচ্চ স্তরে আরােহণ সম্ভব।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *