ধর্মনিরপেক্ষতা অনুচ্ছেদ | বাংলা ২য় পত্র অনুচ্ছেদ রচনা

প্রশ্নঃ ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে বাংলা অনুচ্ছেদ লিখ ।

উত্তরঃ

“ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ’ হচ্ছে এমন একটি বিষয় যা সমাজের বিশেষ কোনাে ধর্মের প্রতি রাষ্ট্রীয়ভাবে পক্ষপাতিত্ব না করাকে বােঝায়। ধর্মনিরপেক্ষতা একটি মানবতাবাদী ও শান্তিকামী মতাদর্শ। এ শব্দটি ইংরেজি ‘সেকুলার’ শব্দের প্রতিরূপ। সকল ধর্মের সহাবস্থানের মধ্য দিয়ে ইহজাগতিক কল্যাণ সাধন করাই ধর্মনিরপেক্ষতার মূল বিষয়। ধর্মনিরপেক্ষতা মানে ধর্মবিরােধিতা নয় বরং সকল ধর্মসম্প্রদায় ও ধর্মবিশ্বাসের প্রতি সমান শ্রদ্ধাবান হওয়া । রাজা রামমােহন রায়, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, ডিরােজিও, মধুসূদন, অম্লান দত্ত, প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুর প্রমুখ ব্যক্তির মাধ্যমে ধর্মনিরপেক্ষ চেতনা মানুষের মধ্যে
ছড়িয়ে পড়ে। বিশেষ করে ওই সময় ইংরেজি শিক্ষায় শিক্ষিত মানুষরাই ধর্মনিরপেক্ষ চেতনাকে লালন করেছিল। মূলত শাস্ত্র-বাক্যে অন্ধবিশ্বাস, গোঁড়ামি, কুসংস্কার,পশ্চাদপদতা,সামাজিক শােষণ এবং কায়েমি স্বার্থ সংরক্ষণের বিরুদ্ধে এক জোরালাে হাতিয়ার হচ্ছে ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ। ফলে উগ্র ধর্মাবলম্বীরা নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় এই চেতনাকে বিলােপ করার চেষ্টা করেছে। তবে ধর্মনিরপেক্ষতা ধারণাটি আধুনিক কালের হলেও প্রাচীন ধর্মগ্রন্থগুলাে একে সমর্থন করে। যেমন- পবিত্র কোরআনে উল্লেখ আছে, ‘লাকুম দ্বীনুকুম ওলিয়াদিন’-যার যার ধর্ম তার তার। তাই পবিত্র আয়াত মানুষকে ধর্মনিরপেক্ষতা সম্পর্কেও সচেতন করে। মহাত্মা গান্ধী বলেন, “আমি আমার নিজের ধর্মকে যতখানি শ্রদ্ধা করি অন্যসব ধর্মকেও ঠিক ততখানি শ্রদ্ধার চোখে দেখি।” অর্থাৎ তার মতে, ধর্মনিরপেক্ষতা মানে কোনাে ধর্মকে হেয় করা বা তার বিরােধিতা করা নয়, বরং সকল ধর্মের প্রতি সমান শ্রদ্ধা করা। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সঙ্গে ধর্মনিরপেক্ষতা অবিচ্ছেদ্যভাবে যুক্ত। ধর্মনিরপেক্ষতার মধ্যে যেমন বৈজ্ঞানিক বা বস্তুতান্ত্রিক চিন্তার প্রতি বিশ্বাস স্থাপনের বিষয়টি জড়িত, তেমনি সামাজিক কল্যাণের স্বার্থে কোনাে ধর্মের প্রতি পক্ষপাতিত্ব না করাও, ধর্মনিরপেক্ষতার অন্যতম উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য। তাই ‘ধর্মনিরপেক্ষতা’ শব্দটিকে পরিপূর্ণভাবে অনুধাবন করে সকলের উচিত সমাজে ধর্মীয় শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা করা।

ধর্মনিরপেক্ষতা অনুচ্ছেদটি কেমন হয়েছে ? নতুন কিছু সংযোজন করা যায় বা বাদ দেওয়া প্রয়োজন? কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *