বাংলাদেশের পােশাকশিল্প অনুচ্ছেদ | বাংলা ২য় পত্র অনুচ্ছেদ রচনা

প্রশ্নঃ বাংলাদেশের পােশাকশিল্প নিয়ে বাংলা অনুচ্ছেদ লিখ ।

উত্তরঃ

তৈরি পােশাকশিল্প বর্তমানে বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের প্রধান উৎস। সম্ভাবনাময় এ খাতকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে কর্মসংস্থানের বিশাল বাজার। ধীরে ধীরে এ শিল্পই হয়ে উঠেছে দেশের অর্থনীতির প্রধান চালিকাশক্তি। ১৯৭৭ সালে সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগে গড়ে ওঠা এ শিল্পে বর্তমানে ৪২ লক্ষ নর-নারী কাজ করছে। এভাবে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে এ শিল্প একদিকে যেমন বেকারত্বের হার কমিয়ে এনেছে তেমনি অর্জন করছে ব্যাপক বৈদেশিক মুদ্রা অর্থনৈতিক সমীক্ষা ২০১৭ অনুযায়ী ২০১৫-১৬ অর্থবছরে তৈরি পােশাকশিল্প ১৪৭৮৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার উপার্জন করে যা মােট রপ্তানি আয়ের ৪৩.২ শতাংশ। অর্থাৎ এ শিল্প বর্তমানে বাংলাদেশের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় শিল্প । তথাপি এ শিল্পের ক্ষেত্রে রয়েছে নানাবিধ সমস্যা। এ শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট শ্রমিকদের অধিকাংশই অল্পশিক্ষিত এবং তাদের কোনাে প্রশিক্ষণ নেই বলে শ্রম অনুপাতে উৎপাদন হয় অনেক কম। তাছাড়া শ্রমিকদের নিম্ন বেতনকাঠামাে, বিশ্ববাজারে মূল্যহ্রাস, গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংকট, রপ্তানির সীমাবদ্ধতা, মূলধনের স্বল্পতা, অনুন্নত অবকাঠামাে ও অব্যবস্থাপনা, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি প্রভৃতি সমস্যার কারণে এ শিল্প আশানুরূপভাবে বিকশিত হতে পারছে না। তাছাড়া প্রায়শই অগ্নিকাণ্ডসহ নানা দুর্ঘটনায় এ শিল্পের গতি মন্থর হয়ে পড়ছে। অমিত সম্ভাবনাময় এ শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে তাই এসব সমস্যা সমাধানে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে পর্যাপ্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে। এছাড়া অবকাঠামােগত উন্নয়ন সাধন, পােশাকশিল্পকে করমুক্ত করা, শ্রমিকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা, বিদেশে লবিস্ট নিয়ােগসহ আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে পােশাকশিল্পের আরও উন্নয়ন সাধন সম্ভব। বর্তমান পরিস্থিতিতে পােশাকশিল্পের উন্নয়ন ব্যতিরেকে এদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। প্রতিযােগিতাপূর্ণ বিশ্ববাজারে টিকে থাকতে হলে বাংলাদেশের তৈরি পােশাকশিল্পকে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। এজন্য সুষ্ঠু পরিকল্পনা, নীতিমালা এবং সরকারি পৃষ্ঠপােষকতাঅতি জরুরি। এক্ষেত্রে সম্ভাবনাময় এ খাতটিকে টিকিয়ে রাখতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে ।

বাংলাদেশের পােশাকশিল্প অনুচ্ছেদটি কেমন হয়েছে ? নতুন কিছু সংযোজন করা যায় বা বাদ দেওয়া প্রয়োজন? কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *