অনুচ্ছেদ: একজন কৃষক | অনুচ্ছেদ রচনা

একজন কৃষক / বাংলার কৃষক / বাংলাদেশের কৃষক অনুচ্ছেদ

একজন কৃষক / বাংলার কৃষক / বাংলাদেশের কৃষক অনুচ্ছেদ (১৩০ শব্দ)

কৃষক এমন একজন ব্যক্তি যিনি কৃষিকাজে নিয়োজিত, খাদ্য বা কাঁচামালের জন্য ফসল উৎপাদন করেন। দুর্ভাগ্যবশত, আমাদের দেশের অধিকাংশ কৃষক দরিদ্র এবং তাদের নিজস্ব কোন জমি নেই। তাই তাদের অন্যের জমিতেই চাষ করতে হয়। তার এবং তার পরিবারের বেঁচে থাকা নির্ভর করে জমির ফসলের উপর এবং অনেকটা প্রকৃতির উপর। বীজ রোপণের ক্ষেত্রে জমি প্রস্তুত করার জন্য তিনি খুব পরিশ্রম করেন। তিনি খুব সকালে উঠে চাষের জমিতে কাজ করতে যান। কৃষকদের কঠোর পরিশ্রমের কারণেই আমরা খাদ্য পাই। তারা আমাদের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আমাদের অর্থনীতি মূলত কৃষির উপর নির্ভরশীল কারণ বাংলাদেশ একটি কৃষিপ্রধান দেশ। বিপুল সংখ্যক মানুষ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কৃষিতে নিয়োজিত। সুতরাং, জাতীয় অর্থনীতির উন্নতির জন্য, কৃষকদের বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে ফসল উৎপাদন করার পদ্ধতি শেখানো উচিত। কৃষকদের জীবনের উন্নতি ঘটাতে সরকারের উচিত সহজ শর্তে ভর্তুকি এবং ঋণ প্রদান করা।

বাংলাদেশের কৃষক / একজন কৃষক / বাংলার কৃষক অনুচ্ছেদ (১৪৫ শব্দ)

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই, একজন কৃষক খুবই দরিদ্র হয়ে থাকেন। অধিকাংশ কৃষকের নিজস্ব জমি নেই। সুতরাং, তিনি অন্যদের জমি চাষ করেন। তিনি কেবলমাত্র তার মৌলিক প্রয়োজনটুকু মিটিয়েই বেঁচে থাকেন। ফসল রোপণ বা বপনের জন্য জমি প্রস্তুত করার জন্য তিনি খুব পরিশ্রম করেন। কৃষকদের দ্বারা রোপিত ফসল বেড়ে ওঠা এবং সেই ফসল কেটে আমরা আমাদের প্রয়োজনীয় খাদ্য পাই। ফসলের মাঠে তারা কঠোর পরিশ্রম করে, বাম্পার ফসল ফলান। যা আমাদের জাতীয় অর্থনীতির বিকাশে সহায়তা করে। আমরা জানি যে বাংলাদেশ একটি কৃষিপ্রধান দেশ। ৮০ শতাংশেরও বেশি মানুষ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কৃষিকাজের সাথে যুক্ত। আমাদের অর্থনীতিও বেশিরভাগই এর উপর নির্ভরশীল। সুতরাং, জাতীয় অর্থনীতির উন্নয়নে, কৃষকদের, সরকার কর্তৃক কৃষি ভর্তুকি দিয়ে সাহায্য করা উচিত। মান্ধাত্তার আমলের লাঙ্গলের পরিবর্তে ট্রাক্টর ব্যবহারে তাদের উৎসাহিত করা উচিত। তাদের শেখানো উচিত আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি। এভাবেই কৃষকদের সুন্দর জীবন গড়ে উঠতে পারে।

বাংলাদেশের কৃষক / একজন কৃষক অনুচ্ছেদ (২১০ শব্দ)

কৃষক হলাে একজন ব্যক্তি যে, জমি চাষ করে এবং ফসল ফলায়। সে আমাদের সমাজের একজন অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। সাধারণত সে গ্রামে বাস করে। তার ঘর ঢেউটিন বা খড়ের তৈরি। একজন আদর্শ কৃষক খুব সাদামাটা জীবনযাপন করে। সে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে জীবিকা উপার্জন করে। সে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কাজ করে। সে খুব সকালে উঠে এবং সামান্য নাস্তা করে। সে তার কাঠের লাঙ্গল এবং এক জোড়া বলদ নিয়ে মাঠে যায়। সে হাতের তৈরি সাধারণ যন্ত্রপাতি দিয়ে জমি চাষ ও প্রস্তুত করে। মাঝে মাঝে সে এতটা ব্যস্ত থাকে যে, দুপুরের খাবার খাওয়ার জন্য বাড়ি যাওয়ার সময় পায় না। তার জীবনে আনন্দ-বেদনা উভয়ই আছে। যখন ফলন ভালাে হয় তখন সে আনন্দ পায়। কিন্তু সে কষ্ট পায় যখন তার ফসল খরা, বন্যা বা ঘূর্ণিঝড়ে নষ্ট হয়। যদিও একজন কৃষক কঠোর পরিশ্রম করে, সে তার পরিবারের মৌলিক চাহিদাগুলাে পূরণ করতে পারে না। সে দিন আনে দিন খায়। সে নানা রােগেও ভােগে। যা হােক, সহজ ঋণের সুবিধা নিয়ে এবং তার পরিকল্পিত ব্যবহারের মাধ্যমে সে তার অবস্থার উন্নতি করতে পারে। তার উচিত বৈজ্ঞানিক যন্ত্রচালিত উপকরণ ও চাষাবাদের আধুনিক পদ্ধতি গ্রহণ করা। আমাদের সমাজে একজন কৃষককে নিচু শ্রেণিভুক্ত হিসেবে ধরে নেয়া হয়। কিন্তু বস্তুতঃ একজন আদর্শ কৃষক দেশের সম্পদ। সে দেশের অর্থনীতিতে যথেষ্ট অবদান রাখে। আমাদের উচিত সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে তাদের সার্বিক অবস্থার উন্নয়ন সাধন করা।

একজন কৃষক / বাংলাদেশের কৃষক / বাংলার কৃষক অনুচ্ছেদটি কেমন হয়েছে ? নতুন কিছু সংযোজন করা যায় বা বাদ দেওয়া প্রয়োজন? কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *