তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম না হইব কেন ?

তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম না হইব কেন ভাবসম্প্রসারণ

মূলভাব: মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। মানুষের রয়েছে বিবেক ও মনুষ্যত্ববােধ। যার দ্বারা মানুষ নিজের ওপর অধমের সকল কুপ্রভাব ঝেড়ে ফেলে দিয়ে নিজেকে উত্তমে পরিণত করতে পারে। কারণ মনুষ্য জাতির আদর্শই হচ্ছে উত্তম পন্থা,কোনাে অধম বা খারাপ পন্থা নয়।

ভাবসম্প্রসারণঃ পৃথিবীতে মানবজীবন প্রতিনিয়ত ভালাে ও মন্দের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হয়। আবার প্রতিটি মানুষের চরিত্র, বৈশিষ্ট্য ও মানসিকতার মধ্যে রয়েছে অভিন্নতা। তাই মানুষের মধ্যে ভালাে ও মন্দ দু ধরনের মানুষ আছে। ভালাে মানুষ অপরের মন্দ কর্মকে কখনাে আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করে না। অন্যায় পথের কোনাে মােহ এদেরকে আকৃষ্ট করতে পারে না। নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী এরা অন্যের কল্যাণ সাধনের চেষ্টা করে। অনেক সময় উত্তমের ব্যবহার ও আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে অধমও উত্তম হয়ে ওঠে। উত্তম ব্যক্তি বিবেক ও মনুষ্যত্ব দ্বারা দেশ ও জাতির কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করে। তাই মানুষকে চারদিকের অন্যায়-অবিচার থেকে নিজেকে রক্ষা করে মানবিক গুণে সমৃদ্ধ করতে হবে জীবনকে। প্রকৃত উত্তম ব্যক্তিকে অন্যায়, অসত্য ও অসুন্দর কখনাে আকৃষ্ট করতে পারে না। উত্তম ব্যক্তি আত্মশক্তিতে বলীয়ান থাকে। আর অধম মানসিকভাবে দুর্বল থাকে। অধম উত্তম ব্যক্তির ক্ষতি করলেও সে কখনাে তার প্রতিদানে ক্ষতি করে না। উত্তম ব্যক্তির চরিত্রগুণ, আদর্শ ও সুন্দর ব্যবহার
সকলেরই আদর্শ।

প্রতিটি মানুষের জীবনের ব্রত হওয়া উচিত উত্তম সাধনা। উত্তম ব্যক্তি তার মহৎ গুণাবলি দিয়ে অধমকেও জয় করতে পারে। পারে মনুষ্যত্ব দ্বারা সকল অন্যায়কে পরাভূত করতে।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *