তথ্যপ্রযুক্তি অনুচ্ছেদ | বাংলা ২য় পত্র অনুচ্ছেদ রচনা

প্রশ্নঃ তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে বাংলা অনুচ্ছেদ লিখ ।

উত্তরঃ

তথ্য-প্রযুক্তি অনুচ্ছেদ ১

বর্তমান সময় তথ্যপ্রযুক্তির সময়। বিজ্ঞানের অব্যাহত জয়যাত্রার সঙ্গী হয়ে আমরা একুশ শতকে পা রেখেছি । এই অগ্রযাত্রায় অন্যতম প্রধান সহায়ক শক্তি হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি (Information Technology)। আজ আমাদের প্রাত্যহিক জীবনযাত্রা তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার ছাড়া প্রায় অচল। ‘তথ্য’ কথাটি নানান অর্থে ব্যবহৃত হয়, যেমন- যথার্থতা, সত্যতা, প্রকৃত অবস্থা, তত্ত্ব, সত্য ইত্যাদি। অন্যদিকে তথ্যপ্রযুক্তির আলােচনায় বলা যেতে পারে, তথ্য হলাে বিজ্ঞানের জ্ঞান আর প্রযুক্তি হচ্ছে সে জ্ঞানের প্রায়ােগিক দিকসমূহ। অর্থাৎ তথ্যের প্রয়ােগ, সংরক্ষণ ও প্রচারের কৌশলকে তথ্যপ্রযুক্তি হিসেবে চিহ্নিত করা যায় । বিজ্ঞানের অগ্রগতির সাথে সাথে প্রযুক্তিবিদ্যারও ব্যাপক প্রসার ঘটেছে। আধুনিক প্রযুক্তিবিদ্যার সর্বশেষ গুরুত্বপূর্ণ দৃষ্টান্ত হচ্ছে। মােবাইল ফোন, কম্পিউটার ও ইন্টারনেট। প্রযুক্তি তথা তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রযাত্রা ও এর ব্যবহার আমাদের জীবনকে করেছে আরও সহজ ও গতিময় । স্থানিক দূরত্ব ঘুচিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি তথ্যপ্রযুক্তি আমাদের সামনে সম্ভাবনার নতুন নতুন দ্বার উন্মােচন করে দিচ্ছে। মৌলিক চাহিদা পূরণ থেকে শুরু করে জীবনমানের আরও আধুনিকায়নে তথ্যপ্রযুক্তি নিরন্তর অবদান রেখে চলেছে। দারিদ্র্য বিমােচনে তথ্যপ্রযুক্তির নানামুখী ব্যবহার লক্ষণীয়। তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষাব্যবস্থা ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যৎ কর্মজীবনের পথকে সুগম করে তুলছে। ব্যবসায়-বাণিজ্যে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার আজ অপরিহার্য বিষয়ে পরিণত হয়েছে। হাল আমলে রাষ্ট্রীয় ও সরকারি বিভিন্ন সিদ্ধান্ত ও কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জনসাধারণকে অবহিত করার ক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। চিকিৎসাক্ষেত্রে চিকিৎসা-সংশ্লিষ্ট তথ্যের আদান-প্রদান এবং আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার সুফল বয়ে আনছে, পীড়িত মানুষের মুখে স্বস্তির হাসি ফোটাচ্ছে। আধুনিক বিশ্বে তথ্যপ্রযুক্তির চরম উৎকর্ষের এই যুগে বাংলাদেশও এ বিষয়ে পিছিয়ে নেই। জনসাধারণ তাদের প্রাত্যহিক জীবনে তথ্য-প্রযুক্তির নানবিধ সুফল ইতােমধ্যে ভােগ করছে। সেই সঙ্গে নতুন প্রজন্মকে তথ্যপ্রযুক্তিপ্রেমী করে গড়ে তুলতে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি বিষয়টি পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির এমন ইতিবাচক চর্চা ও ব্যবহার অব্যাহত রাখা বাঞ্ছনীয়। তাহলেই তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিতকরণ এবং প্রযুক্তির যথাযথ ব্যবহারে আমরা গড়তে পারব সমৃদ্ধ এক নতুন আগামী ।

তথ্য-প্রযুক্তি অনুচ্ছেদ ২

বিজ্ঞানের জ্ঞানকে যে পদ্ধতির মাধ্যমে বিভিন্ন আবিষ্কার ও উৎপাদনে রূপ দেওয়া হয়, তাকে বলে প্রযুক্তি। আর তথ্য-প্রযুক্তি হলাে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স কিংবা টেলিযােগাযােগ মাধ্যমের সাহায্যে তথ্য সক্ষণ, গ্রহণপ্রেরণ ও প্রক্রিয়াকরণ করে
মানুষের ব্যবহার উপযােগী করার প্রযুক্তি। তথ্য-প্রযুক্তির প্রধান সহায়ক যন্ত্র হলাে ইন্টারনেট সংযােগযুক্ত একটি কম্পিউটার অথবা স্মার্টফোন। এর মাধ্যমে মানুষ ঘরে বসেই হাজারাে কাজ করতে পারে। এর ফলে মানুষ তার মূল্যবান সময়কে
অপচয়ের হাত থেকে রক্ষা করতে পারে। তথ্য-প্রযুক্তি শিক্ষা, শিল্প, কৃষি, যােগাযােগ, চিকিৎসাসহ সকল ক্ষেত্রেই নিয়ে এসেছে বৈপ্লবিক পরিবর্তন। আগে পরীক্ষার ফল প্রকাশে অনেক সময় ব্যয় হতাে এবং শিক্ষার্থীদের ফলাফল সংগ্রহ করার
জন্য অনেক দুর্ভোগ পােহাতে হতাে। কিন্তু তথ্য-প্রযুক্তির সাহায্যে বর্তমানে স্বল্প সময়ে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছে এবং শিক্ষার্থীরা সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইট ব্রাউজ করে ঘরে বসেই ফলাফল সংগ্রহ করতে পারছে। প্রযুক্তির কল্যাণে মানুষকে এখন ট্রেন, বিমান ও বাসের টিকেটের জন্য রাস্তায় লম্বা লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে না, ঘরে বসেই কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যের টিকেট সংগ্রহ করতে পারছে। আগে মানুষকে চিকিৎসার জন্য অনেক ভােগান্তি পােহাতে হতাে, কিন্তু বর্তমানে টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে মানুষ ঘরে বসেই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের দ্বারস্থ হয়ে উন্নত চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে। টাকা তােলার জন্য মানুষকে আর ব্যাংকে দৌড়াতে হচ্ছে না। এক্ষেত্রে পকেটে থাকা ডেবিট কার্ড দিয়ে ATM বুথ থেকে টাকা তুলতে পারছে কিংবা ক্রেডিট কার্ড দিয়ে দোকান থেকে কেনাকাটা করতে পারছে। তথ্য-প্রযুক্তির এরূপ অসংখ্য সুবিধা আমাদের দৈনন্দিন জীবনকে আরামপ্রদ ও সহজ করে তুলেছে। তবে অনেক অপরাধীচক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে অপরাধের পরিসরকে আরও বিস্তৃত করছে। তাছাড়া তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে নৈতিক অবক্ষয়মূলক কাজ ও অপসংস্কৃতির চর্চা বাড়ছে। এসব সমস্যার প্রতিকার করে যথাযথভাবে তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারলেই তা আমাদের জন্য প্রকৃত অর্থে বিজ্ঞানের শ্রেষ্ঠ আশীর্বাদ হয়ে উঠবে।

তথ্যপ্রযুক্তি অনুচ্ছেদটি কেমন হয়েছে ? নতুন কিছু সংযোজন করা যায় বা বাদ দেওয়া প্রয়োজন? কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *